Breaking News

কারোর অপমানের জবাবে এই কাজগুলো করুন

সবাইকে খুশি রাখা একটা মানুষের পক্ষে কখনও সম্ভব নয়। তাই সবাইকে সুখী রাখার চিন্তা মাথাতে থাকলে তা সরিয়ে ফেলাটা বুদ্ধিমান বা বুদ্ধিমতীর কাজ। কেউ আপনাকে অকারণে আঘা’ত করছে তাতে করে

নিজেকে হয়তো তুচ্ছ বলে মনে হচ্ছে। কিন্তু এতে হ’তাশ হওয়ার কিছু নেই। কেননা আপনি অন্যায় বা খা’রাপ কাজ করলেই আপনার শত্রু তৈরি হবে ব্যাপারটি এমন নয়। ক যে কোন কারণে কাকে অপছন্দ করে

সেকথা বলা মুশকিল। তাই বুঝেশুনে চলুন।

১) মেপে কথা বলুন: কথা হচ্ছে এমন একটা জিনিস যেটা একবার বলে ফেললে ফিরিয়ে নেয়ার কোন উপায় নেই। যারা আপনাকে অপছন্দ করেন, তারা কিন্তু এই অপেক্ষাতেই থাকেন যে কখন আপনি কী বলবেন।

তাই মুখ খুলুন খুব বুঝেশুনে।

২) অন্যের আচরণ নি’য়ন্ত্রণের ক্ষ’মতা নেই, কিন্তু নিজে’র আছে: যারা আপনার সাথে খা’রাপ ব্যবহার ক’রতে চায়, তাদেরকে আপনি ভালো বানাতে পারবেন না। কিন্তু নিজে’র আচরণ অবশ্যই আপনি নিয়ন্ত্রণ ক’রতে

পারেন। যত যাই হোক, উত্তেজিত হবেন না। মাথা খুবই ঠাণ্ডা রাখু’ন। তারা যেমন আচরণ করবে আপনার সাথে ঠিক তার বিপরীত আচরণ করুন।

৩) কিছু ব্যাপার দেখেও না দেখা: কেউ আপনাকে অপমান করার চেষ্টা করছে, কিংবা অকারণেই ঝামেলা করার চেষ্টা করছে? তাদের এই আচরণগুলো দেখেও না দেখার ভান করুন। কেউ আপনাকে তখনই অপমান

ক’রতে পারবে যখন তার কৌশল বা চেষ্টা আপনি দেখবেন এবং প্র’তিক্রিয়া দেখাবেন। যা আপনি দে’খতেই পান নি, সেই জিনিস কীভাবে আপনাকে আঘা’ত করবে? এমন ভাব করুন যেন তাদের অপমান করার চেষ্টা আপনি দে’খতে পাচ্ছেন না।

৪) সবকিছু ব্য’ক্তিগতভাবে নেবেন না: একজন ভালো মানুষ কখনো অন্যকে অপমান করার কথা চিন্তা করে না। এগুলো কেবল তারাই চিন্তা করে যাদের মন খুবই ছোট। তাই কেউ আপনাকে অপমান করার চেষ্টা

করছে বলে নিজেকে দোষী ভাববেন না, বা তার কোন কাজ ব্য’ক্তিগতভাবে নেবেন না। জানবেন যে স’মস্যা তাদের।

৫) বড় হাতিয়ার ভালো ব্যবহার: কেউ খা’রাপ ব্যবহার করলেই কি পাল্টা খা’রাপ ব্যবহার ক’রতে হবে? আপনি তো তাদের মত নন, আর তাই তাদের মত আচরণও করবেন না। বরং সম্ভব হলে খুবই ভালো ব্যবহার

করুন। এতে হয়তো তারা একটু হলেও লজ্জা পেতে পারেন আর অন্যায় চেষ্টা থেকে সরে আসার চেষ্টা ক’রতে পারেন।

৬) নিজে’র কাজ কিংবা দায়িত্ব নিখুঁতভাবে করুন: যারা অপমান করার সুযোগ করছেন, তাদেরকে নিজে’র কোন দু’র্বলতা বা ত্রুটির খোঁ’জ দেবেন না। নিজে’র কাজ ও দায়িত্ব সঠিকভাবে পা’লন করুন, তারা আপনার

দোষ খুঁজে না পেলে অপমান করাটা একটু শক্ত হয়ে দাঁড়াবে।

Check Also

খাবারের অভাবে, নিজের ৩ মাসের সন্তানকে বিক্রি করলেন এক মা

পৃথিবীর সৃষ্টির পর থেকে কেউ বেশি খেয়ে মরছেন, আবার কেউ না খেয়ে মরছে না। সেই …